অ্যান্ড্রয়েড এন বা অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ এর সব নতুন ফিচার

্যান্ড্রয়েড এন এর প্রথম প্রিভিউ সংস্করণ ইতিমধ্যে বের হয়ে গিয়েছে। হাঁ, অবশ্যই এটি সাথে করে অনেক নতুন ফিচার নিয়ে এসেছে। যদিও এটি অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ এর প্রথম প্রিভিউ সংস্করণ। এর পরে ধিরে ধিরে আরো অনেক ফিচার দেখা যাবে আশা করা যায়। আমি আগেই বলে রাখছি যে, আমি এখানে যে ফিচার গুলো নিয়ে আলোচনা করবো তা একদম গুগল অফিসিয়াল ভাবে জানানো। তাই সন্দেহের কোনো কারন নেই। তো চলুন জেনে নেয়া যাক অ্যান্ড্রয়েড এন এর সব নতুন আকর্ষণীয় ফিচার সম্পর্কে।

অ্যান্ড্রয়েড এন ফিচার সমূহ

গুগল ডেভেলপার সম্মেলন অনুসারে আগামী ১৮ই মে তে অ্যান্ড্রয়েড এই নতুন সংস্করণটির প্রিভিউ রিলিজ করার কথা ছিল। কিন্তু গুগল আকস্মিক ভাবে তার রিলিজ তারিখ এর ২ মাস আগেই অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ রিলিজ করে দেয় গত ৯ তারিখে। রিলিজ করার সাথে সাথে এই প্রিভিউ সংস্করণটি নেক্সাস এর বেশ কয়েকটি ডিভাইজ এর জন্য সমর্থন যোগ্য করা হয়। বর্তমানে নেক্সাস ৫ এক্স, নেক্সাস ৬, নেক্সাস ৬ পি, নেক্সাস ৯, নেক্সাস ৯ জি, নেক্সাস প্লেয়ার এবং পিক্সেল সি নামক ডিভাইজ গুলোতে অফিসিয়াল ওটিএ আপডেট এর মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ প্রিভিউ সংস্করণ আপডেট করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। সমর্থনকারী ডিভাইজ এর তালিকা অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার সাইট এ প্রকাশ করা হয়েছে।

উপরের তালিকা অনুসারে আপনার যদি এই মডেলের কোনো নেক্সাস ফোন থাকে তবে আপনি অফিয়াল ওটিএ আপডেট এর মাধ্যমে সহজেই অ্যান্ড্রয়েড এন পরীক্ষা করে দেখতে পারবেন। তাছাড়া তালিকা ভুক্ত ডিভাইজ গুলোতে এই  প্রিভিউ সংস্করণ ফ্ল্যাশ করেও ব্যবহার করতে পারবেন। নিচে আমি এর অফিসিয়াল ফ্ল্যাশ লিঙ্ক দিলাম। আপনার ডিভাইজ অনুসারে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

এছাড়াও নতুন কোনো ডিভাইজ আপডেট করার জন্য যুক্ত করা হলে এর ফ্ল্যাশ ফাইল এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েড এর এই নতুন সংস্করণটির শেষ সংস্করণ প্রথমে গুগল নেক্সাস ডিভাইজ গুলোকে দেওয়া হবে। তারপরে মোটামোটি ৬ মাস বা তারও পরে অন্যান্য অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইজ নির্মাতা কোম্পানি গুলোকে এর আপডেট দেওয়া হবে। তো চলুন এবার এর উল্লেখ্যযোগ্য ফিচার গুলোতে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

অ্যান্ড্রয়েড এন logo

অ্যান্ড্রয়েড এন মাল্টি-উইন্ডো মুড

হাঁ, বন্ধুরা এই প্রিভিউ সংস্করণটিতে মাল্টি-উইন্ডো ফিচারটি নিশ্চিত করা হয়েছে। এই ফিচার এর মাধ্যমে সমর্থনকারী অ্যাপস গুলোকে সাইড বাই সাইড একাধিক উইন্ডোতে একসাথে ওপেন করে রাখা সম্ভব হবে। তাছাড়া উইন্ডো গুলোকে ইচ্ছা মতো টেনে ছোট বা বড় করা সম্ভব হবে। চাইলে প্রত্যেকটি উইন্ডোকে একটি মিনিমাম সাইজ পর্যন্ত প্রসার করা যাবে। এই ফিচারটি আগেও বিভিন্ন ওইএম ডিভাইজ গুলোতে দেখা গেছে। স্যামসাং ডিভাইজ গুলোতে কাস্টম রম এর মাধ্যমে মাল্টি-উইন্ডো ফিচারটি রাখা হয়েছিলো। কিন্তু এবার গুগল অফিসিয়াল ভাবে মাল্টি-উইন্ডো মুড ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড এর জন্য রিলিজ করেছে। নিজে ইউটিউব ভিডিও থেকে প্রাপ্ত মাল্টি-উইন্ডো মুড এর একটি ছবি দেওয়া হলো।

অ্যান্ড্রয়েড এন ৭.০

ট্যাবলেটের জন্য আরো বেশি উপযোগী

অ্যান্ড্রয়েড এনকে ট্যাবলেট এর জন্য বিশেষ ভাবে উপযোগী করে বানানো হয়েছে। এতে থাকছে ট্যাবলেট এর জন্য split screen mode তাছাড়াও থাকছে real push for tablet-optimized apps, customizable nav buttons, DPI switcher, stock floating mini-apps এবং ইউজার ইন্টারফেসেও আনা হয়েছে লক্ষণীয় পরিবর্তন।

নতুন অ্যান্ড্রয়েড এন সেটিংস্‌ মেন্যু

অ্যান্ড্রয়েড এনে রয়েছে নতুন করে গঠন করা সেটিংস্‌ মেন্যু। আপনি মেন্যুর যে অংশেই ঢুকে থাকুন না কেন শুধুমাত্র বামে সয়াইপ করলেই প্রাইমারী সেটিংস্‌ মেন্যু এসে হাজির হয়ে যাবে। তাই নতুন কোনো সেটিংস্‌ মেন্যুতে প্রবেশ করার জন্য আপনাকে বারবার ট্যাপ বা ব্যাক বাটন হিট করতে হবে না। মনে করুন আপনি ডিসপ্লে সেটিংস্‌ এ আছেন এবং নোটিফিকেশান সেটিং এ যেতে চান, তাহলে শুধুমাত্র বামদিক থেকে টানেই মেইন সেটিংস্‌ মেন্যু চলে আসবে এবং সেখান থেকে সরাসরি নোটিফিকেশান সেটিং এ চলে যেতে পারবেন।

অ্যান্ড্রয়েড এনঅ্যান্ড্রয়েড এন

ডোজ মুডকে আরো বর্ধিত করা হয়েছে

ডোজ মুড ফিচারটি এমন একটি ফিচার যা অ্যান্ড্রয়েড মার্সমাল্যোতে সকলেই পছন্দ করেছিলো। এই ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড এন এ আরো উন্নতিকরণ করা হয়েছে। ডোজ মুড এখন দুইটি উপায়ে কাজ করবে। অর্থাৎ আপনার ফোনটি সামান্য ব্যবহার বন্ধ করলেই ডোজ মুড চালু হয়ে যাবে। আপনার ফোনটি আপনার প্যান্ট পকেটে থাক আর ব্যাগের ভেতর ডোজ মুডকে সর্বদায় উপভোগ করতে পারবেন। আর আরেকটি অংশ কাজ করবে ঠিক আগের মতোই। অর্থাৎ ফোনটি যখন দীর্ঘক্ষণ ব্যবহার করবেন না তখন ফোনটি গভীর hibernation মুডে চলে যাবে। এতে ডাটা এবং ব্যাটারি সেভ করা সম্ভব হবে।

নতুন নোটিফিকেশান মেন্যু সাথে কুইক সেটিংস্‌

নতুন নোটিফিকেশান মেন্যুতে প্রধানত ২ টি পরিবর্তন দেখা গেছে। একটি হলো কুইক সেটিংস্‌, যেখানে আপনি ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, ব্যাটারি সেভার ইত্যাদি এর মতো মোট ৫ টি কুইক অপশন টগ্ল করতে পারবেন। ওয়াইফাই, ব্লুটুথ এখান থেকে সরাসরি অনঅফ করতে পারবেন। ফ্ল্যাশ লাইট এ লং প্রেস করলে ক্যামেরা অন হয়ে যাবে। নোটিফিকেশান মেনুতে আনা হয়েছে লক্ষণীয় পরিবর্তন। নোটিফিকেশান মেন্যু ডিফল্ট ভাবে পরিপূর্ণ ইন্টারফেস দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। সমর্থন যোগ্য অ্যাপস গুলোর নোটিফিকেশান থেকেই রিপ্লাই করা যাবে। মনে করুন জিমেইল অ্যাপ থেকে একটি নতুন মেইলের নোটিফিকেশান আসলো। নোটিফিকেশান থেকেই আপনি মেইলটি রিপ্লাই করা এবং আর্কাইভ করতে পারবেন।

নোটিফিকেশান মেন্যুতে যদি কোনো অ্যাপ এর নোটিফিকেশান দেখতে না চান তবে নোটিফিকেশান এর বামে সয়াইপ করলে একটি গিয়ার আইকন দেখা যাবে। গিয়ার আইকন থেকে অপছন্দের অ্যাপ গুলোকে নোটিফিকেশান দেওয়া থেকে আটকানো যাবে। কুইক সেটিংস্‌ মেন্যুতে যোগ করা হয়েছে একাধিক পেজ ফিচার। যেখানে আপনি বিভিন্ন সেটিং শর্টকাট বিভিন্ন পেজ ভিত্তিতে রাখতে পারবেন। এর মানে হচ্ছে এমনিতে তো আপনি ৫ টি কুইক অপশন রাখতে পারবেনই এবং তারসাথে বড় কুইক মেন্যু এক্সপ্যান্ড করতে পারবেন।

অ্যান্ড্রয়েড ৭.০

অ্যান্ড্রয়েড এন এর দিস্প্লেয় সাইজ পরিবর্তন

অ্যান্ড্রয়েড এন আপনার ডিভাইজটির ডিসপ্লে সাইজ পরিবর্তন করার সুবিধা দিয়ে থাকে। ডিসপ্লে সাইজ পরিবর্তন করার জন্য যেতে হবে Settings> Display > Display Size। এবার ডিসপ্লে সাইজ স্লাইডার থেকে এর সাইজ সহজেই পরিবর্তন করতে পারবেন।

দ্রুতগামী অ্যাপস অপটিমাইজেশন

অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ তে থাকছে দ্রুতগামী অ্যাপস অপটিমাইজেশন এর সুবিধা। এবং তার সাথে ললিপপ, কিটক্যাট এর তুলনায় কমানো হয়েছে বুটিং টাইম। প্রথমবার যখন কোনো অ্যাপ চালু করা হবে, সেটার ডাটা মেমোরিতে সেভ হয়ে থাকবে যাতে পরের বার ব্যবহার করার ক্ষেত্রে লোডিং টাইম না নেয়। মেমোরিতে ডাটা সেভ থাকার জন্য প্রতিবার বুট ও হবে অনেক দ্রুত।

অ্যান্ড্রয়েড এন রিসেন্ট অ্যাপ মাল্টি টাস্কিং

অ্যান্ড্রয়েড এন রিসেন্ট অ্যাপ মাল্টি টাস্কিং ফিচারটির মাধ্যমে খুব সহজেই রিসেন্ট অ্যাপ গুলো মাল্টি টাস্কিং করা সম্ভব হবে। মনেকরুন, আপনি জিমেইল অ্যাপ খুললেন কোনো মেইল পড়ার জন্য। মেইল এ একটি লিঙ্ক আছে যেটা আপনাকে ভিসিট করতে হবে। এখন এই লিঙ্ক ভিসিট করার জন্য আপনি ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করলেন। তাহলে আপনার রিসেন্ট অ্যাপ হলো জিমেইল এবং ক্রোম ব্রাউজার। এখন এই দুইটি অ্যাপ আপনি শুধু মাত্র মাল্টি টাস্কিং বাটনে ডাবল ট্যাপ করেই একে অপরের সাথে সুইচ করতে পারবেন। রিসেন্ট অ্যাপ মাল্টি টাস্কিং ফিচারটি আরো ভালোভাবে বুঝতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন।

অ্যান্ড্রয়েড এন নতুন ডাটা সেভার ফিচার

অ্যান্ড্রয়েড এন এ যোগ করা হয়েছে এক নতুন ডাটা সেভার ফিচার। যা আপনাকে দেবে বিস্তর ডাটা সেভ করার নিয়ন্ত্রন। জখনাপ্নি এই ফিচারটি অন করবেন তখন ফোনএর সকল ব্যাকগ্রাউন্ড সিঙ্ক বন্ধ হয়ে যাবে, এবং শুধু মাত্র প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাপ এর সিঙ্ক অন থাকবে। এই ফিচারটি যে শুধু অ্যাপ এর ডাটা সার্ভার ব্লক করবে তা নয় বরং ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটার উপর লিমিটও লাগিয়ে দেবে যাতে কম ডাটা খরচ হয়।

লক স্ক্রীন এ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

আমি মনে করি এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ফিচার যেটি অ্যান্ড্রয়েড এন হতে পাওয়া যাবে। এই ফিচার এর মাধ্যমে লক স্ক্রীনে আপনার পূর্ণনাম, ঠিকানা, জন্মতারিখ, রক্তের গ্রুপ ইত্যাদির মতো অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রাখা যাবে। মনে করুন এমন স্থানে গিয়ে আপনার কোনো দুর্ঘটনা ঘটে গেলো যেখানে আপনাকে কেও চেনে না, এবং আপনি মারাত্মক আহত হয়ে গেছেন। সেখানে এই তথ্য গুলো আপনার সঠিক পরিচয় দিতে সাহায্য করবে। এর জন্য ফোন আনলক করার প্রয়োজন হবে না।

অ্যান্ড্রয়েড ৭.০

অ্যান্ড্রয়েড এন বা অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ এর পূর্ণ নাম

অ্যান্ড্রয়েড এন বা অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ এর পূর্ণ নাম এখনো পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়নি। যদিও এটা ঠিক যে এই অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণটি ২০১৬ সালের বাজারে আলোড়ন ফেলতে চলেছে। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে এর সম্ভাব্য নাম অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নিউট্রেলা হতে পারে বলে ধারনা করেছে।

কিন্তু এই ব্যাপারে গুগল এর সিইও “Sundar Pichai” বলেছেন অ্যান্ড্রয়েড এন এর অফিসিয়াল নাম এর জন্য তিনি তার মা কে জিজ্ঞাস করবেন অথবা অ্যান্ড্রয়েড ফ্যানদের ভোটের মাধ্যমে এই নাম নির্ণয় করা হবে।

শেষ কথা

আশাকরি অ্যান্ড্রয়েড এন প্রথম প্রিভিউ সংস্করণ ফিচার এর উপর এই দ্রুতলুক পোস্টটি আপনার ভালো লেগেছে। এবং অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পেড়েছেন। পোস্টটি বেশি বেশি শেয়ার করে সকলকে জানিয়ে দিন। কোনো প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

নোটঃ এই পোস্ট এর কিছু কিছু ইমেজ Androidauthority.com থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।