Nextbit Robin একটি ক্লাউড নির্ভর স্মার্টফোন

Nextbit Robin স্মার্টফোন, গত ২-৩ দিন ধরে ইন্টারনেট, বিশেষ করে পছন্দের ইউটিউব চ্যানেল গুলোতে একটি ফোন এর নাম নিশ্চয় শুনে আসছেন। ইতিমধ্যে অনেক ইউটিউব চ্যানেল এ এই ফোনটির রিভিউ এসে পড়েছে। তো এই Nextbit Robin আবার কি ধরনের ফোন? এতে কোনো নতুন কথা আছে কি না। এর সুবিধা গুলো কি কি? ইত্যাদি বিষয় গুলো আজকে আমি আলোচনা করতে চলেছি। তো চলুন শুরু করা যাক।

Nextbit Robin স্মার্টফোন এর বিশেষত্বঃ

Nextbit Robin স্মার্টফোনটির আসল বিশেষত্ব হলো এটি একটি  ক্লাউড নির্ভর স্মার্টফোন। এই ফোনটির কম্পানি বলেছে যে এটি একটি ক্লাউড নির্ভর স্মার্টফোন, যাতে করে আপনি কখনই Storage এর কমতিতে ভুগবেন না।সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয়টি হলো এই ফোনটির ডিজাইন। ফোনটির ডিজাইন একেবারেই নতুন। যা আপনার বেশ নজর কারতে পারে। অসাধারন চারকোনা ডিজাইন এর সাথে থাকছে একদম ইউনিক কালার। স্মার্টফোন আসার পর থেকে আমারা তেমন রংচং ফোন আর দেখতেই পাই না। তবে আপনি যদি একটু আলাদা স্বাদের মানুষ হোন তবে এর অসাধারন চারকোনা ডিজাইন আপনার ভালো লাগতে বাধ্য। HTC এর ডিজাইনার Scott Croyle এই ফোনটির বিশেষ ভাবে ডিজাইন করেছেন। এর আগে তিনি HTC M7 এবং HTC M8 ডিজাইন করেন। তিনি এখন Nextbit এর সাথে যুক্ত হয়েছেন।

Nextbit Robin স্মার্টফোন এর ফিচারসঃ

Nextbit Robin স্মার্টফোন

  • ডিসপ্লেঃ এই ফোন এ রয়েছে ৫.২” HD অর্থাৎ ১০৮০পি আইপিএস ডিসপ্লে। এবং একে সুরক্ষিত করেছে Gorilla Glass 4।
  • প্রসেসরঃ এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৮০৮ স্নাপড্রাগন প্রসেসর।
  • ব্যাটেরিঃ এখানে 2640 mAh ব্যাটেরি ব্যবহার করা হয়েছে। এবং এই ব্যাটেরিটি খোলা যাবে না।
  • Storage: ৩২ জিবি অফলাইন Storage এর সাথে থাকছে ১০০ জিবি অনলাইন Storage।
  • ক্যামেরাঃ এর আসল ক্যামেরাটি ১৩ মেগাপিক্সেলস এবং এর সামনের ক্যামেরাটি ৫ মেগাপিক্সেলস। তাছাড়া পেছনে দিকে ডুয়াল এলইডি ফ্লাস তো রয়েছেই।

এই সব আকর্ষণীয় ফিচার গুলো ছাড়াও এতে রয়েছে ৩ জিবি RAM, ব্লুটুত ৪.০, NFC, USB Type C, ন্যানো সিমকার্ড, ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার, সামনের স্পিকার এবং দ্রুত চার্জ করার সুবিধা।

শিরোনাম এই বলেছি যে এটি একটি ক্লাউড নির্ভর স্মার্টফোন। তো ক্লাউড সুবিধা তো আর নতুন কিছু না। আমরা অনেক কোম্পানির কাছ থেকেই এই সুবিধা স্মার্টফোন এর জন্য পেয়ে থাকি। তবে Nextbit Robin স্মার্টফোন কে আলাদা ভাবে ক্লাউড নির্ভর স্মার্টফোন কেনো বলা হচ্ছে? তো বন্ধুরা এর নতুন বিষয়টি হলো এতে আপনি পাচ্ছেন ১০০ জিবি অনলাইন Storage। আপনি যখন এই ফোনটিকে ওয়াইফাই এর সাথে কানেক্ট করে চার্জে লাগাবেন তখন এই ফোনটি সয়ংক্রিয় ভাবে ক্লাউড এ আপনার সকল অফলাইন ডাটার ব্যাকআপ করবে। মনে করুন আপনি আজ সারাদিন ৫০০ টি ফটো তুলেছেন। তারপর আপনি বাড়ি এসে আপনার ফোনটিকে ওয়াইফাই এর সাথে কানেক্ট করে চার্জে লাগালেন। তখন আপনার সেই ৫০০ টি ফটো সয়ংক্রিয় ভাবে ক্লাউড এ ব্যাকআপ হয়ে যাবে।

তাছাড়া আপনি যে অ্যাপ গুলো কম ব্যবহার করেন, সে অ্যাপ গুলোকে সয়ংক্রিয় ভাবে ক্লাউড এ ব্যাকআপ করে অফলাইন থেকে মুছে ফেলা হবে। পরে যদি আপনি আবার ব্যবহার করতে চান তবে আপনাকে ক্লাউড থেকে আবার এনে দেওয়া হবে। তো মুটামুটি এই ধারনার উপর ভিত্তি করে এই নতুন ফোনটি বাজারে আনা হয়েছে।

Nextbit Robin স্মার্টফোন এর কিছু সম্ভাব্য কমতিঃ

ফোনটির বাস্তবিক গঠন এবং নতুন প্রযুক্তির দিক থেকে দেখতে গেলে সন্দেহ ছাড়া এটি একটি অসাধারন স্মার্টফোন। কিন্তু তারপর ও কিছুকিছু বিষয় এর কমতি আমি লক্ষ করেছি। যেমনঃ এই ফোনটিতে মাত্র 2640 mAh ব্যাটেরি ব্যবহার করা হয়েছে। যেটা এখনকার দিনের চাহিদার চেয়ে অনেক কম।

আরেকটি কমতি হলো এর ক্যামেরা। এর আসল ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেলস এবং এর সামনের ক্যামেরাটি ৫ মেগাপিক্সেলস। ফোনটির দাম এর কথা চিন্তা করতে গেলে এই ফিচারটি একদমই ইউনিক নয়। কেনোনা বাজারে ১০ হাজার টাকার ভেতর এই ক্যামেরা ফিচার আপনি অনেক সহজেই পেয়ে যাবেন।

ফোনটির আসল বাজার যাত স্লোগান এই বিশেষ কমতি দেখতে পাচ্ছি আমি। ফোনটিতে ৩২ জিবি মেমোরি আছে এবং কোম্পানি মোতাবেক আরো ১০০ জিবি অনলাইন ক্লাউড আছে। যাই হোক, আমরা জানি যে Android ফোন এ গুগল ফটোস থেকে আনলিমিটেড ফটো এবং ভিডিও স্টোর করে রাখা যায়। আমরা বেশির ভাগ সময় ক্লাউডে ফটো এবং ভিডিও ই স্টোর করি। তো যখন গুগল আগে থেকেই আনলিমিটেড স্টোর দিচ্ছে, তো এই লিমিটেড ১০০ জিবি অনলাইন Storage নেওয়ার জন্য এই ফোন কেনার কোনো যুক্তি আমি খুজে পাই না। তাছাড়া আরো অনেক ক্লাউড আছে যেমনঃ গুগল ড্রাইভ, ওয়ান ড্রাইভ, ড্রপবক্স ইত্যাদি। সুতরাং এই ফোন এর ১০০ জিবি অনলাইন Storage ফিচারটি ততোটাও আকর্ষণীয় না!

Nextbit Robin স্মার্টফোন টির মূল্যঃ

এই স্মার্টফোনটি এখনও বাংলাদেশে আসেনি। ভবিষ্যতে কখনও আসবে ও কিনা তাও বলা যাচ্ছে না। তবে এর ইউএস দাম হলো $৪০০। যেটা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩০,০০০ টাকার সমান।

উপসংহারঃ

শেষ কথায় বলব যে এই স্মার্টফোনটি বাংলাদেশী ব্যবহারকারি গনদের জন্য উপযুক্ত হবে না। আমাদের ইন্টারনেট এর গতি এতটাও উচ্চ না যে আমরা নিমিষেয় সবকিছু আপলোড করে ফেলবো! তাছাড়াও আমরা অনেকেই লিমিটেড ইন্টারনেট প্লান ব্যবহার করে থাকি। এবং আমাদের দেশে ডাটার দাম ও কম না। তবে আপনি যদি নতুনত্বকে ভালোবাসেন। কিংবা এর ফিচার গুলো যদি মনে ধরে থাকে তবে এটি আপনার জন্য একটি উপযোগী ফোন হতে পারে।

ছবিঃ Androidauthority